পৌরনীতি ও সুশাসন ২য় পত্র: ১ম অধ্যায়ের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

পৌরনীতি ২য় পত্র ১ম অধ্যায়ের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন ১ : উপনিবেশিক শাসন ও নির্যাতনের যাতাকলে নিষ্পেষিত ‘M’ রাষ্ট্রের জনগণ দীর্ঘদিন যাবৎ স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করে চলেছে। গণআন্দোলনে বাধ্য হয়ে শাসকগোষ্ঠী একটি নতুন আইন প্রণয়ন করে রাষ্ট্রকে দুভাগে ভাগ করে দুটি পৃথক রাষ্ট্রের জন্ম দিয়ে দেশ ত্যাগ করে।

ক. মন্ত্রিমিশন পরিকল্পনার সদস্য সংখ্যা কতজন?
খ. বঙ্গভঙ্গ বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের সাথে তোমার পঠিত কোনো আইনের আছে কি? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ আইনের গুরুত্ব বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ২ : নাগরিকদের অধিকতর সেবা দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টির জন্য সরকার ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে দু’ভাগে ভাগ করে ‘ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন’ ও ‘ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন’ নামে পৃথক দুটি সিটি কর্পোরেশনে রূপান্তরিত করে।

ক. বঙ্গভঙ্গ কী?
খ. দ্বৈতশাসন বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের সাথে তোমার পঠিত বইয়ের সাদৃশ্য আছে কি? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ ঘটনার মূলে ছিল জাতীয়তাবাদি আন্দোলনকে নস্যাৎ করা – বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৩ : ‘ক’ একজন রাজনৈতিক নেতা । মানবতার কল্যাণ তার রাজনীতির মূল লক্ষ্য। বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষের কথা চিন্তা করে তিনি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব করেন ।

ক. ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠিত হয় কখন?
খ. “দ্বিজাতি তত্ব’ বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের সাথে তোমার পঠিত কোনো ঐতিহাসিক প্রস্তাবের সাদৃশ্য আছে কি? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ প্রস্তাবের মধ্যে স্বাধীন বাংলাদেশের বীজ নিহিত ছিল- বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৪ : ভারতীয়দের স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য ১৮৮৫ সালে সর্বপ্রথম এ উপমহাদেশে একটি রাজনৈতিক দলের উদ্ভব ঘটে। মুসলমানগণও তাদের স্বার্থ এবং দাবি-দাওয়া পূরণের উদ্দেশ্যে আরো একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেন। দল দুটি প্রাথমিক পর্যায়ে ব্রিটিশদের প্রতি আনুগত্য দেখায়। পরবর্তীতে দল দুটির নেতৃতে ভারত বিভক্ত হয়ে দুটি স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্ম হয়।

ক. দ্বি-জাতি তত্বের প্রবস্তা কে?
খ. প্রাদেশিক স্থায়ত্তশাসন বলতে কী বোঝ?
গ. উদ্দীপকে কোন কোন রাজনৈতিক দলের কথা বলা হয়েছে? যেকোনো একটি রাজনৈতিক দলের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য আলোচনা করো।
ঘ. ভারত বিভক্তিতে উক্ত দল দুটির ভূমিকা মূল্যায়ন করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৫ : রফিকের দেশে রাষ্ট্রীয় কার্যাবলিকে কেন্দ্রীয় সরকার ও প্রাদেশিক সরকারের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। প্রাদেশিক সরকার তার ওপর অর্পিত কার্যাবলি পরিচালনার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ স্বাধীন। সেখানে রাষ্ট্রীয় সকল ক্ষেত্রে সংবিধানের প্রাধান্য বিদ্যমান।

ক. ব্রিটিশ ভারতের সর্বশেষ গভর্নর জেনারেল কে ছিলেন?
খ. দ্বৈতশাসন বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত শাসনব্যবস্থা কোন. ধরনের? ব্রিটিশ ভারতের কোন আইনে এ ধরনের শাসনব্যবস্থার উল্লেখ আছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকে বর্ণিত আইনের কার্যকারিতা বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৬ : বিশাল আয়তনে গঠিত অঞ্চলের প্রশাসক ছিলেন জনাব ইসমাঈল। তার একার পক্ষে বিশাল অঞ্চলের উন্নয়ন ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা করা কঠিন হচ্ছিল। এর ফলে কর্তৃপক্ষ বিশাল অঞ্চল ‘ক’ ও ‘খ’ অঞ্চলে বিভক্ত করে। এতে ‘ক’ অঞ্চলের জনগণ খুশি হলেও ‘খ’ অঞ্চলের জনগণ তীব্র বিরোধিতা করে। ফলে দুই অঞ্চলকে পুনরায় একত্রীকরণ করা হয়।

ক. প্রাদেশিক স্বায়ত্তশাসন কাকে বলে?
খ. মুসলিম লীগ কেন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল?
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত বিভক্তির সাথে তোমার পাঠ্যবইয়ের কোন ঘটনার মিল আছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লিখিত বিভক্তিকরণ ‘ক’ অঞ্চলের জনজীবনে যে প্রভাব ফেলেছিল তা বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৭ : উপমহাদেশের শাসনের এক পর্যায়ে ব্রিটিশরা ভারত শাসন আইন নামে একটি আইন তৈরি করে। উক্ত আইনে সর্বপ্রথম ভারতের প্রদেশগুলোতে স্বায়ত্তশাসনের কথা বলা হয়। এই আইনে সর্বভারতীয় যুক্তরাষ্ট্র ও দুটি নতুন প্রদেশ গঠন করা হয়। এই আইনের ধারাবাহিকতায় এক সময় ভারত ও পাকিস্তান স্বাধীন হয়।

ক. দ্বৈতশাসন কাকে বলে?
খ. কেন ব্রিটিশ সরকার ‘ভাগ কর ও শাসন কর’ নীতি গ্রহণ করেছিল?
গ. উদ্দীপকের উল্লেখিত আইনের সাথে তোমার পাঠ্যবইয়ের কোন আইনের সাদৃশ্য আছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. এই আইনের ধারাবাহিকতায় ভারত ও পাকিস্তান স্বাধীন হয় – বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৮ : ‘ক’ নামক অঞ্চলটি দীর্ঘদিন উপনিবেশিক শাসনাধীনে ছিল। বৃহৎ এই অঞ্চলে ক্রমশ দুইটি ধর্মীয় সম্প্রদায় সংগঠিত হয়। শাসকগোষ্ঠীর বিমাতাসুলভ আচরণ ও সম্প্রদায় দুইটির অনৈক্যের কারণে অঞ্চলটিতে অস্থিরতা দেখা দেয়। এমতাবস্থায় উপনিবেশিক শক্তি অঞ্চলটির স্বাধীনতা প্রদানের লক্ষ্যে একটি আইন প্রণয়ন করে। এই আইনের ফলে ‘ক’ অঞ্চলটিতে সম্প্রদায়গত পরিচয়ে দুইটি স্বাধীন রাষ্ট্রের উদ্ভব হয়।

ক. বাংলার সৈয়দ আহমদ বলা হয় কাকে?
খ. স্বদেশি আন্দালন বলতে কী বোঝায়?
গ. উদ্দীপকের সাথে তোমার পঠিত কোনো আইনের আছে কি? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. ভারতবর্ষের তৎকালীন রাজনৈতিক বাস্তবতায় উক্ত আইনটি অপরিহার্য ছিল – বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ৯ : দক্ষিণ আফ্রিকা এমন একটি দেশ যেখানে বিদেশি শাসক দীর্ঘদিন শাসন করেছে। নেলসন ম্যান্ডেলার নেতৃত্বে সেখানকার কৃষ্ণাঙ্গ জনগণ স্বাধীনতার জন্য দীর্ঘকাল সংগ্রাম করে। অবশেষে দক্ষিণ আফ্রিকা স্বাধীনতা লাভ করেছে।

ক. কত সালে সর্বভারতীয় মুসলিম লীগ গঠন করা হয়েছিল?
খ. ১৯৩৫ সালে প্রবর্তিত ভারতীয় প্রাদেশিক শাসন কীরূপ ছিল?
গ. উদ্দীপকের ঘটনাটির সাথে তোমার পঠিত কোন ঘটনার সাদৃশ্য আছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. ভারতবর্ষের রাজনীতির প্রেক্ষাপটে উক্ত ঘটনার পরিণতি বিশ্লেষণ করো।

সৃজনশীল প্রশ্ন ১০ : আফ্রিকা মহাদেশের একটি বৃহৎ অঞ্চলে পাশাপাশি দুটি প্রধান সম্প্রদায় বসবাস করে। এখানে দীর্ঘদিন যাবৎ বিদেশি শাসন বিদ্যমান থাকায় দু’সম্প্রদায়ের মধ্যে ছন্দ-সংঘাত লেগেই থাকে। শান্তিপূর্ণ সমাধানের লক্ষ্যে কর্তৃপক্ষ উদ্যোগ নিলেও তা সমাধান হয়নি। পরিশেষে, কর্তৃপক্ষ দু’সম্প্রদায়কে আলাদা করার চিন্তা করে এবং পার্লামেন্টে একটি আইন পাশ করে। এ আইন অনুযায়ী দু’সম্প্রদায়ের জন্য আলাদা দুটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করে।

ক. ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠাতা কে?
খ. দ্বৈত শাসনব্যবস্থা বলতে কী বোঝ?
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত আইনের সাথে তোমার পঠিত কোন আইনের সাদৃশ্য রয়েছে? ব্যাখ্যা করো।
ঘ. উদ্দীপকের সাথে সাদৃশ্যপর্ণ আইনের তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো।

ডাউনলোড

উপরের ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে উত্তরসহ প্রশ্নগুলো ডাউনলোড করে নাও। এইচএসসি শিক্ষার্থীরা নতুন নতুন সাজেশান্স ও নোট পেতে আমাদের Facebook Page এ Like দিয়ে রাখো। আমরা আছি ইউটিউবেও। আমাদের YouTube চ্যানেলটি SUBSCRIBE করতে পারো এই লিংক থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *